বিজেপি নেত্রী প্রিয়াঙ্কা লড়ছেন মমতার বিরুদ্ধে

0
22

তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন তার প্রচার শুরু করেছেন, ভবানীপুরের গোটা এলাকা জুড়ে যখন পোস্টার ঠিক তখনই মমতার বিরুদ্ধে বিজেপি দলের যুবনেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিবরীওয়ালকে দাঁড় করাল গেরুয়া শিবির।

মমতার বিরুদ্ধে কাকে প্রার্থী করা হবে, তা নিয়ে দলের ভেতর ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছিল। বেশ কিছু নামজাদা ব্যক্তির নামও উঠে আসে সেই সময়।

তাদের মধ্যে ছিলেন- অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী, প্রাক্তন পুলিশকর্তা ভারতী ঘোষ এবং দলের তাত্ত্বিক নেতা অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়, লকেট চট্টোপাধ্যায়, রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, নিহত বিজেপি কর্মী অভিজিৎ সরকারের দাদা বিশ্বজিৎ এবং প্রিয়ঙ্কা টিরবীওয়াল।

একাধিক সূত্রে জানা যায়, বিজেপির বহু নেতাই মমতার বিরুদ্ধে দাঁড়াতে চাননি। আবার দলের একাংশ চাইছিলেন না নতুন কাউকে প্রার্থী করা হোক।

কাকে প্রার্থী করা হবে, এই বিষয় নিয়ে যখন দলে তোলপাড় চলছে, তখনই সামনের সারিতে প্রিয়াঙ্কার নাম। ঘটনাচক্রে, প্রিয়াঙ্কা শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ। আর তাই নাম নির্বাচন করে দিল্লির কাছে প্রস্তাব পাঠানো হলে সেই প্রস্তাবেই সিলমোহর দিয়েছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব উল্লেখ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে ভবানীপুর আসন থেকে জিতেছিলেন। এবার অবশ্য তিনি নির্বাচনে লড়েন নন্দীগ্রাম আসনে। সেই আসনে তিনি ১ হাজার ৯৫৬ ভোটে পরাজিত হন তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে। কিন্তু ভারতের সংবিধান মেনে তৃণমূল কংগ্রেস মমতাকে ৫ মে মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসায়।

সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী, আগামী ৬ মাসের মধ্যে মমতাকে রাজ্যের যেকোনো একটি বিধানসভা আসন থেকে জিতে আসতে হবে। সেই লক্ষ্যে ৩০ সেপ্টেম্বরের ভবানীপুর আসনে উপনির্বাচনে লড়বেন মমতা। একই দিনে মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুর কেন্দ্রেও ভোট। সূত্র- আনন্দবাজার পত্রিকা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে